অলিম্পিক হতাশার পর জাপানের এশিয়া-প্যাসিফিক ডায়মন্ড কাপেও ভালো করতে পারলেন না দেশসেরা গলফার সিদ্দিকুর রহমান। এশিয়ান এই ট্যুরে যৌথভাবে ৪৪তম হয়েছেন সিদ্দিকুর।

প্রায় ১৩ লাখ ডলার প্রাইজমানির আসরে জাপানের ইবারাকি কান্ট্রি ক্লাবের ওয়েস্ট কোর্সে চতুর্থ ও শেষ রাউন্ডে তিনটি বার্ডি ও চারটি বোগি করে ৪৪তম অবস্থান নিশ্চিত করেন সিদ্দিকুর। চার রাউন্ড মিলিয়ে পারের চেয়ে তিন শট বেশি খেলেন বাংলাদেশের এই গলফার। আর চাইনিজ তাইপের চ্যান শিহ-চ্যাঙ সব মিলিয়ে পারের চেয়ে ১০ শট কম খেলে এ আসরে সেরা হয়েছেন।

তৃতীয়বারের মত শুরু হতে যাচ্ছে আন্তর্জাতিক এশিয়ান ট্যুর গলফ টুর্নামেন্ট। স্বাগতিক বাংলাদেশসহ বিশ্বের ২৩টি দেশের ২৩৩ জন গলফার এ প্রতিযোগিতায় অংশ নেবেন। সোমবার বিকালে কুর্মিটোলা গলফ ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়।

টুর্নামেন্টের নাম দেয়া হয়েছে বসুন্ধরা গলফ বাংলাদেশ ওপেন ২০১৭। আগামী ১ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হতে যাওয়া এই টুর্নামেন্ট চলবে ৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। টুর্নামেন্ট আয়োজন নিয়ে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মহিউদ্দিন সিদ্দিকি বলেন, ‘ফুটবল বিশ্বকাপ বা আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপের মতোই এটি এশিয়ান ট্যুর। বর্তমান বিশ্বে গলফের তৃতীয় বৃহত্তম ট্যুর। আন্তর্জাতিক এই টুর্নামেন্টে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বিশেষ করে এশিয়ার খ্যাতিমান গলফাররা অংশগ্রহণ করে থাকেন।’

বাংলাদেশ ছাড়াও আরও ২২টি দেশের মোট ১৯৫ জন গলফার অংশ নিচ্ছেন। বাংলাদেশ থেকে অংশ নিচ্ছেন মোট ৩৯জন গলফার। এর মধ্যে ৩৩জন পেশাদার ও ৬ জন অ্যামেচার। টুর্নামেন্টের প্রাইজমানি ৩ লাখ ডলার।

এ সময় সংবাদ সম্মেলনের উপস্থিত ছিলেন টুর্নামেন্টের সাংগঠনিক কমিটির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল আব্দুল্লাহিল বাকী, ভাইস চেয়ারম্যান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোঃ মহিউদ্দিন সিদ্দিক, বাংলাদেশ গলফ ফেডারেশনের যুগ্ম সচিব ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোঃ ওবায়দুল হক (অবঃ), কুর্মিটোলা গলফ ক্লাবের টুর্নামেন্ট কমিটির সভাপতি ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আবিদুর রেজা খান (অবঃ), মিডিয়া কমিটির সদস্য মেজর খন্দকার নুরুল আফসার (অবঃ) ও কো-অর্ডিনেটর আতাউল্লাহ।

ঢাকা সেনানিবাসস্থ কুর্মিটোলা গলফ ক্লাবের ব্যাংকুয়েট হলে গতকাল শনিবার এশিয়ান ট্যুর প্রফেশনাল গলফ টুর্ণামেন্ট এবি ব্যাংক বাংলাদেশ ওপেন ২০১৮ উপলক্ষ্যে টুর্ণামেন্টের লোগো উন্মোচন, মিডিয়া ব্রীফ এবং ওয়ার্কশপ অনুষ্ঠিত হয়। আইএসপিআরের এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, উক্ত টুর্ণামেন্টের সাংগঠনিক কমিটির চেয়ারম্যান এবং বাংলাদেশ গলফ ফেডারেশনের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট মেজর জেনারেল এ কে এম আব্দুল্লাহিল বাকী প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে লোগো উন্মোচন করেন। এ টুর্ণামেন্ট সম্পর্কে গণমাধ্যমকে বিস্তারিতভাবে অবহিতকরণের জন্যে একই স্থানে মিডিয়া ব্রীফের আয়োজন করা হয়। মিডিয়া ব্রীফ অনুষ্ঠানে গণমাধ্যম’কে ব্রীফ প্রদান এবং সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর প্রদান করেন এবি ব্যাংক বাংলাদেশ ওপেন ২০১৮ এর সাংগঠনিক কমিটির সদস্য ও মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোঃ ফখরুল আহসান এবং টুর্ণামেন্ট কমিটির চেয়ারম্যান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আবিদুর রেজা খান (অবঃ)। অতঃপর এ টুর্ণামেন্ট উপলক্ষ্যে একটি ওয়ার্কশপ অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশ গলফ ফেডারেশনের সার্বিক তত্ত¡াবধানে, এবি ব্যাংক লিঃ এর পৃষ্ঠপোষকতায় এবং এশিয়ান ট্যুর এর সহযোগিতায় আগামী ৯ থেকে ১২ মে পযন্ত কুর্মিটোলা গলফ ক্লাবে চতুর্থবারের মত আন্তর্জাতিক পেশাদার গলফ টুর্ণামেন্ট এবি ব্যাংক বাংলাদেশ ওপেন ২০১৮ অনুষ্ঠিত হবে। এই টুর্ণামেন্ট উপলক্ষে বিশে^র প্রায় ২৫টি দেশের (আমেরিকা, ইউরোপ, অস্ট্রেলিয়া ও এশিয়ার) পেশাদার গলফার, অফিসিয়াল, রেফারী, সংগঠক, টেলিভিশন স¤প্রচারের টেকনিশিয়ান এবং গনমাধ্যম সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গসহ প্রায় দুশতাধিক বিদেশী ব্যক্তিবর্গ বাংলাদেশে আগমন করবেন। উল্লেখিত ব্যক্তিবর্গ প্রায় ১০ দিন সময়কাল বাংলাদেশে অবস্থান করবেন।

ঢাকা সেনানিবাসস্থ কুর্মিটোলা গলফ ক্লাবের ব্যাংকুয়েট হলে শনিবার ‘এশিয়ান ট্যুর প্রফেশনাল গলফ টুর্নামেন্ট উপলক্ষে টুর্নামেন্টের লোগো উন্মোচন করা হয়। আগামী ৯ থেকে ১২ মে কুর্মিটোলা গলফ ক্লাবে চতুর্থবারের মতো আন্তর্জাতিক পেশাদার গলফ টুর্নামেন্ট ‘এবি ব্যাংক বাংলাদেশ ওপেন ২০১৮’ অনুষ্ঠিত হবে। লোগো উন্মোচনের পর মিডিয়া ব্রিফ ও ওয়ার্কশপ অনুষ্ঠিত হয়েছে। টুর্নামেন্টের সাংগঠনিক কমিটির চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ গলফ ফেডারেশনের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট মেজর জেনারেল এ কে এম আব্দুল্লাহিল বাকি প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে লোগো উন্মোচন করেন। পরে গণমাধ্যমকে টুর্নামেন্ট সম্পর্কে বিস্তারিত জানানো হয়। ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন ‘এবি ব্যাংক বাংলাদেশ ওপেনের সাংগঠনিক কমিটির সদস্য ও মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোঃ ফখরুল আহসান ও টুর্নামেন্ট কমিটির চেয়ারম্যান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আবিদুর রেজা খান (অবঃ)। পরে টুর্নামেন্ট উপলক্ষে একটি ওয়ার্কশপ অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশ গলফ ফেডারেশনের সার্বিক তত্ত্বাবধানে এবং এবি ব্যাংক লিমিটেডের পৃষ্ঠপোষকতায় কুর্মিটোলা গলফ ক্লাবে চতুর্থবারের মতো আন্তর্জাতিক এই টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হবে। বিশ্বের প্রায় ২৫টি দেশের (আমেরিকা, ইউরোপ, অস্ট্রেলিয়া ও এশিয়ার) পেশাদার গলফার, অফিসিয়াল, রেফারি, সংগঠক, টেলিভিশন সম্প্রচারের টেকনিশিয়ান, গণমাধ্যম সংশ্লিষ্টসহ প্রায় দু’শতাধিক বিদেশী ব্যক্তি বাংলাদেশে আসবেন। উল্লেখিত ব্যক্তিবর্গ প্রায় ১০ দিন বাংলাদেশে অবস্থান করবেন। ব্রিফিংয়ে বলা হয়, এশিয়ান ট্যুর ইভেন্টে অংশগ্রহণ করতে হলে আমাদের গলফারদের আন্তর্জাতিক কোয়ালিফাইং টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ করে যোগ্যতা অর্জন করতে হয়। এটা শুধু ব্যয়বহুলই নয় বরং সময়সাপেক্ষও। কিন্ত বাংলাদেশ এই টুর্নামেন্টের আয়োজক হওয়ার সুবাদে ৩৫ জন উদীয়মান পেশাদার গলফার ও ৬ জন এ্যামেচার গলফার সরাসরি মূল পর্বে খেলায় অংশগ্রহণ করার সুযোগ পাবেন। এটা আমাদের জন্য অন্যতম একটি বড় অর্জন। বাংলাদেশে এশিয়ান ট্যুর আয়োজনের প্রেক্ষিতে এ খেলার প্রসার দেশে ছড়িয়ে পড়বে। এশিয়ান ট্যুর বর্তমান গলফ বিশ্বে গলফের তৃতীয় বৃহত্তম ট্যুর। আন্তর্জাতিক এই টুর্নামেন্টে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ অংশগ্রহণ করছে। এশিয়ার খ্যাতিমান পেশাদার গলফারগণ অংশগ্রহণ করে থাকেন। এই আয়োজন ক্রীড়াজগতে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নতুন এক উচ্চতায় নিয়ে যাবে। পাশাপাশি এই ইভেন্ট দেশকে এশিয়ার অন্যতম গলফিং গন্তব্যে পরিণত করবে। এতে ক্রীড়া, পর্যটন ও ব্যবসা-বাণিজ্যসহ বিভিন্ন খাতে বিনিয়োগের বিপুল সম্ভাবনার দ্বার উম্মোচিত হবে।

এশিয়ান ট্যুর প্রতিষ্ঠা লাভের পর ১৯৯৫ সালে প্রথম এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে। এশিয়া (জাপান ব্যতীত) ও ওশেনিয়া অঞ্চলের বিভিন্ন দেশে এশিয়ান ট্যুর কর্তৃক আয়োজিত এ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। এশিয়ার সর্ববৃহৎ এ টুর্নামেন্টে এশিয়া, ইউরোপ, আমেরিকা এবং আফ্রিকার শ্রেষ্ঠ পেশাদার গলফারগণ অংশগ্রহণ করবেন। তিন লাখ মার্কিন ডলারের সমপরিমাণ প্রাইজমানির এই টুর্নামেন্টের নামকরণ করা হয়েছে ‘এবি ব্যাংক বাংলাদেশ ওপেন ২০১৮’।

The Bangladesh Open 2018, sponsored by AB Bank with assistance from the Asian Tour, will get underway on May 9 at Kurmitola Golf Club in Dhaka. This was announced during the logo unveiling ceremony of the tournament’s fourth edition Saturday in Dhaka.

Chairman of the Bangladesh Open organising committee and Bangladesh Golf Federation senior vice president, Major General AKM Abdullahil Baquee was present during the ceremony as the chief guest. High-profile professional golfers from Asia, Europe, America and Africa will take part in the $300,000 tournament. It should be mentioned that 35 emerging players and six amateur golfers will represent Bangladesh in the competition.

প্রথমবারের মতো এশিয়ান ট্যুর আয়োজন করে বাংলাদেশের গলফ নতুন যুগে পা ফেলেছে মাত্রই গত বছর। এশিয়ান ট্যুরের বর্ষপঞ্জিতে নিয়মিত জায়গা করে নেওয়ার প্রত্যয় ছিল আয়োজকদের। সেই ধারাবাহিকতাতেই বসুন্ধরা গ্রুপের পৃষ্ঠপোষকতায় বসুন্ধরা বাংলাদেশ ওপেনের দ্বিতীয় আসর বসছে আগামী ১০ ফেব্রুয়ারি থেকে।
তিন লাখ মার্কিন ডলারের টুর্নামেন্টে বাংলাদেশের সেরা গলফার সিদ্দিকুর রহমানসহ অংশ নিচ্ছেন দেশ-বিদেশের ১৩২ জন খেলোয়াড়। এশিয়ান ট্যুরের ক্যাটাগরি ১৭-তে থাকার সুবাদে সরাসরি খেলছেন জামাল হোসেনও। এ ছাড়া আয়োজক বলে বাংলাদেশের আরও ৩০ জন সুযোগ পাচ্ছেন। এদের ৫ জন শৌখিন, বাকি ২৫ জন দেশের উদীয়মান গলফার। বর্তমান চ্যাম্পিয়ন সিঙ্গাপুরে মারদান মামাত, থাইল্যান্ডের গলফ তারকা থাবর্ন ভিরাতচান্তরা আসছেন এবারও।
টুর্নামেন্ট উপলক্ষে কাল দুপুরে রাজধানীর কুর্মিটোলা গলফ ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে টুর্নামেন্টের বিস্তারিত জানান দ্বিতীয় বাংলাদেশ ওপেনের মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) সেলিম আকতার। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন গলফ ফেডারেশন ও স্পনসর প্রতিষ্ঠানের আরও কয়েকজন কর্মকর্তা।

টানা চতুর্থবারের মতো ঢাকায় হতে যাচ্ছে এশিয়ান ট্যুর টুর্নামেন্ট। গত তিন বছর এশিয়ার শীর্ষ এই টুর্নামেন্টে পৃষ্ঠপোষকতা করেছে বসুন্ধরা গ্রুপ। চতুর্থ আসর করতে এগিয়ে এসেছে এবার এবি ব্যাংক। আগামী ৯ থেকে ১২ মে কুর্মিটোলা গলফ ক্লাবেই হবে তিন লাখ ডলারের এ আসর।

২০১৫ সালে প্রথমবারের মতো এশিয়ান ট্যুর টুর্নামেন্ট বসুন্ধরা বাংলাদেশ ওপেন হয় ঢাকায়। টানা তিন বছর সফলভাবে এই আসর আয়োজন করেছে বসুন্ধরা গ্রুপ। এ বছর টুর্নামেন্টটি কারা করবে—এ নিয়ে ছিল অনিশ্চয়তা। এশিয়ান ট্যুরের সূচিতেও আর তা রাখা হয়নি। অবশেষে এবি ব্যাংক এগিয়ে আসায় মে মাসে এই টুর্নামেন্ট আয়োজনের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ গলফ ফেডারেশনের সমন্বয়ক লে. কর্নেল আব্দুল বারি (অব.), ‘এবি ব্যাংক বাংলাদেশ ওপেন নামে হবে এবারের টুর্নামেন্টটি। আমরা লোগো চূড়ান্ত করছি। সেটা হয়ে গেলে এশিয়ান ট্যুরের সূচিতেও তা অন্তর্ভুক্ত হয়ে যাবে। বিভিন্ন দেশের খেলোয়াড়দের এরই মধ্যে আমন্ত্রণও জানানো হচ্ছে।’ ২০১৫-তে এশিয়ান ট্যুরের প্রথম টুর্নামেন্টটিও হয় মে’তে। ঝড়বৃষ্টিতে সেবার খেলা ব্যাহত হলে পরের দুই বছর নিয়ম করেই ফেব্রুয়ারিতে হয়েছে এ আসর। এ বছর তো সূচিতেই রাখা হয়নি তা। ফেব্রুয়ারিতে এগিয়ে আনা হয়েছিল মালয়েশিয়ার মেব্যাংক চ্যাম্পিয়নশিপ। এখন ট্যুর সূচিতে আগামী মাসে আছে শুধু একটি টুর্নামেন্ট সেটিও কোরিয়ায়। ৯ মে থেকে তাই এবি ব্যাংক বাংলাদেশ ওপেন আয়োজনে বাধা নেই।

দেশসেরা গলফার সিদ্দিকুর রহমান নিশ্চিত করেছেন তিনিও খেলছেন এ আসরে, ‘এশিয়ান ট্যুর নিয়ে অনিশ্চয়তা কেটে গেছে, এটা যে আমাদের গলফারদের জন্য কত ভালো খবর, তা বোঝাতে পারব না। আমার জন্য ঘরের মাঠে এশিয়ান ট্যুর খেলা বিরাট সুযোগ। আমি মুখিয়ে আছি মে’তে এই টুর্নামেন্টটা খেলার জন্য। এ মাসের ২৪ তারিখ থেকে এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ট্যুরের টুর্নামেন্টও হবে। সিদ্দিক খেলবেন এ আসরেও। তাতে এশিয়ান ট্যুরের প্রস্তুতিটাও হয়ে যাবে। বাংলাদেশে আগের তিন আসরের মধ্যে সর্বশেষবারই সিদ্দিকের সবচেয়ে ভালো পারফরম্যান্স, রানার্স-আপ হয়েছিলেন। থাই গলফার জ্যাজ জানে ওয়াতানন্দ জিতেছিলেন শিরোপা। তার আগের বছরও শিরোপা গেছে থাইল্যান্ডে। আর প্রথম আসরে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলেন সিঙ্গাপুরের মার্দান মামাত। সিদ্দিকসহ বাংলাদেশের পেশাদার গলফাররা এবার আরো একবার ঝাঁপাবেন ট্রফিটা নিজেদের কাছেই রেখে দিতে।

Bangladesh Open welcomes AB Bank

Asian Tour from May 9 to 12

Back to top